May by Known

ছেলেদের জন্য পৃথিবীতে সব চাইতে মূল্যবান হল মেয়েদের হাসি।
———- হুমায়ূন আহমেদ।

যে জাতি তার বাচ্চাদের বিড়ালের ভয় দেখিয়ে ঘুম পাড়ায়, তারা সিংহের সাথে লড়াই করা কিভাবে শিখবে?
যারা পানিতে ডুবে যাওয়ার ভয়ে তার সন্তানকে ডোবায় নামতে দেন না, কিভাবে সে সন্তান আটলান্টিক পাড়ি দিবে?”
———- শেরে বাংলা এ. কে. ফজলুল হক।

“যদি আমার কাছে একটি গাছ কাটার জন্য ৮ ঘণ্টা সময় থাকে।।
তাহলে আমি কুড়াল ধার করার জন্য ৭ঘণ্টা ব্যায় করব”
———- আব্রাহাম লিঙ্কন!!

পৃথিবীতে এমন কোনো কাজ নেই যা করলে জীবন ব্যার্থ হয়।
জীবন এতই বড় ব্যাপার যে একে ব্যার্থ করা খুবই কঠিন…..”
———- হুমায়ুন আহমেদ।

মানুষ নিজেকে লুকিয়ে রাখতে পছন্দ করে।
সে চায় তাঁকে খুঁজে বের করুক।
———- হুমায়ূন আহমেদ।

মানুষের পুরো জীবনটা হচ্ছে একটা সরল অংক।
যতই দিন যাচ্ছে,ততই আমরা তার সমাধানের দিকে যাচ্ছি।
——- হুমায়ূন আহমেদ ।

“যে ভালোবাসা না চাইতে পাওয়া যায়,
তার প্রতি কোনো মোহ থাকে না।”
——— হুমায়ূন আহমেদ

কাউকে হারিয়ে দেয়াটা খুব সহজ, কিন্তু কঠিন হলো কারো মন জয় করা।

-এ পি জে আবদুল কালাম

"চুপ থাকলে মূর্খকেও জ্ঞানী বলে মনে হয়।
কিন্ত বেশী কথা বললে জ্ঞানীকে মূর্খ মনে হয়।"
---হযরত আলী রা.

উঁচুতে উঠতে হলে তোমার ভেতরের অহংকারকে– বাহিরে টেনে বের করে আনো, এবং হালকা হও, কারণ তারাই ওপরে উঠতে পারে যারা হালকা হয়।

আমার হারিয়ে ফেলার কেউ নেই,
কাজেই খুঁজে পাওয়ারও কেউ নেই,
আমি মাঝে মাঝে নিজেকে হারিয়ে ফেলি,
আবার খুঁজে পাই!
———- হুমায়ুন আহমেদ

যদি নাই বুঝতে পারি বেঁচে আছি তবে জীবনের কি মূল্য ? সব সময় নিজেকে বা অন্যকে আনন্দে রেখে দেখই না… বাহ্, জীবনটাতো মন্দ নয়।
———- হুমায়ূন আহমেদ।

ছেলে এবং মেয়ে বন্ধু হতে পারে, কিন্তু তারা অবশ্যই একে অপরের প্রেমে পড়বে। হয়ত খুবই অল্প সময়ের জন্য, অথবা ভুল সময়ে। কিংবা খুবই দেরিতে, আর না হয় সব সময়ের জন্য।
তবে প্রেমে তারা পড়বেই…
——- হুমায়ূন আহমেদ।

মেয়েদের তৃতীয় নয়ন থাকে। এই নয়নে সে প্রেমে পড়া বিষয়টি চট করে বুঝে ফেলে। পুরুষের খারাপ দৃষ্টিও বুঝে। মুরুব্বি কোন মানুষ মা- মা বলেপিঠে হাত বুলাচ্ছে – সেই স্পর্শ থেকেও সে বুঝে ফেলে মা ডাকের অংশে ভেজাল কতটুকু আছে।
——-হুমায়ূন আহমেদ।

লাইফে কিছু ফিল্মি ব্যাপার থাকার উচিত ছিল। এই যেমন কাউকে খুব মিস করছি আর সে বুঝে গেল ব্যাপারটা! মুখে বলা লাগলো না… এটা আসলে খুব পেইনফুল। মিসও করছি আবার বলতেও ইচ্ছা হচ্ছে না!
———- হুমায়ূন আহমেদ।

“নিজের সার্টিফিকেট নিজেই দিও না।খেয়াল করে দেখ যে, সবাই তোমাকে কি ভাবে।তাদের কাছেই সার্টিফিকেট নাও।নিজের সমালোচনা করেই দেখ না,শুদ্ধ হওয়া কঠিন কিছু না।”
———- হুমায়ূন আহমেদ।

20-Oct-2020 তারিখের কুইজ
(অংশগ্রহণ করেছেন: 381+)
প্রশ্নঃ প্রতি ৪ বছর পরপর নভেম্বর মাসের প্রথম মঙ্গলবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ১৭৭৬ সালে যুক্তরাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার সময় সেটি একক কোন দেশ ছিল না বরং সেটা ছিল অনেকগুলো স্বাধীন রাজ্যের একটি সমন্বিত জোট। তাই এখানে সরাসরি জনগণের ভোটে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হন না, প্রথমে জনগণ ভোট দিয়ে ইলেক্ট্রোরাল কলেজ বা নির্বাচকমণ্ডলী নির্বাচিত করেন। পরবর্তীতে সেই নির্বাচকমণ্ডলী ভোট দিয়ে নির্বাচন করেন জনগণের পছন্দের প্রেসিডেন্ট প্রার্থীকে। এই পদ্ধতিকে বলা হয় ইলেকটোরাল ভোট পদ্ধতি। বাংলাদেশে গাড়ি চালনার দিক হলো বাম, মানে বাম দিক দিয়ে বা বাম লেন ব্যবহার করে গাড়ি চালাতে হয়, আমেরিকার গাড়ি চালনার দিক কোনটি?
(A) বাম
(B) ডান
(C) উভয়