গাম্বিয়ার করা মামলায় মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আদালতের ৪ আদেশ

রোহিঙ্গা গণহত্যা মামলায় মিয়ানমারের বিরুদ্ধে চারটি আদেশ দিয়েছেন আন্তর্জাতিক বিচার আদালত (আইসিজে)। এই চার আদেশে বলা হয়েছে-

১! রোহিঙ্গাদের সুরক্ষা দিতে হবে। রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর সদস্যদের হত্যা, নিপীড়ন, বাস্তুচ্যুতির মতো পদক্ষেপ গ্রহণ থেকে বিরত থাকতে হবে। মিয়ানমারের সেনাবাহিনী বা অন্য রাষ্ট্রীয় অন্য কোনো বাহিনী রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন চালাতে পারবে না। এমনকি নির্যাতনের ষড়যন্ত্রও করতে পারবে না।

২! দায়ী সেনাদের বিচারের আওতায় আনতে হবে।
৩! প্রতি মাসে মিয়ানমার সরকারকে গাম্বিয়ার সঙ্গে বসতে হবে এবং গাম্বিয়ার প্রশ্নের জবাব দিতে হবে।

৪! আগামী ৪ মাসের মধ্যে রোহিঙ্গাদের সুরক্ষায় নেওয়া পদক্ষেপের রিপোর্ট আদালতে জমা দিতে হবে।এরপর প্রতি ছয় মাস পরপর প্রতিবেদন দিতে হবে।গাম্বিয়া এই প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে তার পরিপ্রেক্ষিতে আদালতের কাছে আবেদন করতে পারবে।

এর পর ও আমি বলবো এটা রোহিঙ্গাদের জন্য সঠিক বিচার হয়নি?আইসিজে উচিত ছিলো কঠিন হস্তে বিচার করা। কারণ ভ্যবিষতে কোন দেশ গণহত্যা চলানোর আগে মিয়ানমার কথা স্মরন করতো?
আশা করি চূরান্ত বিচারে জয় মনবতার হবে,মিয়ারমার নামে অর্তচারী দেশটি ধ্বংস হবে,ইনশাআল্লাহ
###Collected

দেশে ৩ কোটি অবৈধ স্মার্টফোন বন্ধের প্রক্রিয়া শুরু
[ বিস্তারিত NEWS মেনুতে ]... Read More>>

রাশিয়ায় চীনা নাগরিক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা
... Read More>>

ক্যাসিনোকাণ্ড ও বিদেশে অর্থ পাচার: সিঙ্গাপুর যাচ্ছে দুদক টিম
... Read More>>

ভাল লাগলো এখানে জয়েন করে... Read More>>

আমি বিমুহিত এমন সুন্দর শোসাল সাইট পেয়ে। ... Read More>>

Milimishi is very unique company I can learn from here More things everybody can try ... Read More>>

18-Feb-2020 তারিখের কুইজ
(অংশগ্রহণ করেছেন: 4723+)
প্রশ্নঃ পদ্মা সেতুর ফলে প্রত্যক্ষভাবে প্রায় ৪৪,০০০ বর্গ কিঃমিঃ বা বাংলাদেশের মোট এলাকার ২৯% অঞ্চলজুড়ে ৩ কোটিরও অধিক জনগণ প্রত্যক্ষভাবে উপকৃত হবে। বরিশালসহ পুরো দক্ষিণ অঞ্চলের সাথে রাজধানীর পরিবহণ ব্যায় ও সময় কমে আসবে। রেল, গ্যাস, বৈদ্যুতিক লাইন এবং ফাইবার অপটিক কেবল সম্প্রসারণের ব্যবস্থা রয়েছে। এই সেতুর ফলে দেশের জিডিপি উল্লেখ যোগ্য হারে বৃদ্ধি পাবে। পদ্মা সেতুর দৈঘ্য কত?
(A) ৬.১৫ কি. মি.
(B) ৪.৮ কিমি
(C) ৯.৫০ কি. মি.